প্লাস্টিকের দানার পরিবর্তে সিমেন্ট আমদানি: প্রাণের বিরুদ্ধে শুল্ক ফাঁকির মামলা

জিএস নিউজ ডেস্কজিএস নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৫১ পিএম, ১২ জুন ২০১৯

জালিয়াতির মাধ্যমে প্লাস্টিকের দানার পরিবর্তে সিমেন্ট আমদানি করায় চট্টগ্রাম বন্দরে প্রাণ  গ্রুপের  ৩০টি কনটেইনারের খালাস স্থগিত করেছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। প্লাস্টিকের দানা ঘোষণা দিয়ে সৌদি আরবের একটি বিখ্যাত ব্র্যান্ডের সিমেন্ট আমদানির মাধ্যমে প্রাণ গ্রুপ প্রায় তিন কোটি টাকার শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার চেষ্টা করেছিল।

এ ঘটনায় কাস্টমসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মলিউজ্জামান সজিব বাদী হয়ে শুল্ক ফাঁকির অভিযোগে বিভাগীয় মামলা করেছেন। এই চালানের বিপরীতে অর্থ পাচার করা হয়েছে কিনা সে বিষয়টিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

চট্টগ্রাম কাস্টমস সূত্র জানায়, প্রাণ আরএফএল গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান প্রাণ ডেইরি লিমিটেড প্লাস্টিক দানা ঘোষণায় ৫১০ টন পণ্য নিয়ে আসে দুবাই থেকে। গত ২৬ মে চালানটি চট্টগ্রাম বন্দরে আসে। ৬ জুন রাতে ঈদের ছুটিতে চালানটি খালাসের চেষ্টা করা হয়।

কিন্তু পণ্যের কায়িক পরীক্ষাকালে দেখা যায়, পণ্যের বস্তায় লেখা আছে সিমেন্ট। সন্দেহ হওয়ায় চালানটি আটকে দেয় কাস্টম কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার রাতে বন্দরের ইয়ার্ডে ৩০টি কনটেইনার খুলে ১০ হাজার ২৫০ বস্তা সিমেন্ট পাওয়া যায়।

সূত্র জানায়, ঘোষিত প্লাস্টিক দানার শুল্ক ৩২ শতাংশ। আর সিমেন্টের শুল্ক ৯১ শতাংশ। আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান প্লাস্টিকদানা হিসেবে এই পণ্যের শুল্ক পরিশোধ করে ১ কোটি ৪২ লাখ টাকা। কিন্তু প্রাপ্ত পণ্য- সিমেন্টের শুল্ক আসে প্রায় ৪ কোটি ৬৫ লাখ টাকা। এই হিসেবে চালানটিতে ৩ কোটি ২৩ লাখ টাকা শুল্ক ফাঁকি দেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম কাস্টমসের যুগ্ম কমিশনার সাধন কুমার কুন্ড  জানান, প্রাণ ডেইরি লিমিটেড দুবাই থেকে চালানটি নিয়ে আসে। তারা ৫ লাখ ৬৬ হাজার ডলারের ৫১০ টন প্লাস্টিক দানা আনার ঘোষণা দেয়। কিন্তু পণ্যের বস্তার গায়ে সিমেন্ট লেখা থাকায় মিথ্যা ঘোষণার বিষয়টি ধরা পড়ে।

জিএসনিউজ/এএওয়াই

আপনার মতামত লিখুন :