ম্যাচ হারার অভিযোগ আফগান অধিনায়ক গুলবাদিন নাইবের দিকে

জিএস নিউজ ডেস্কজিএস নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:০৫ এএম, ৩০ জুন ২০১৯

বিশ্বকাপে শিরোপা দৌড়ে অনেক আগেই বাদ পড়েছে আফগানিস্তান। তাদের আর পাওয়ার কিছুই ছিল না। কিন্তু পাকিস্তানের হারানোর অনেক কিছুই ছিল। এই অবস্থায় গতকাল মুখোমুখি হয় পাকিস্তান ও আফগানিস্তান।

বারবার রঙ পাল্টানো এই ম্যাচে জয়ের পাল্লা কখনো আফগানিস্তানের দিকে ঝুঁকেছে আবার কখনো পাকিস্তানের দিকে। তবে আফগানিস্তানের জয়ের পাল্লাটাই ভারি ছিল বেশ। শেষে নাটকীয় এক জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে সরফরাজের দল। কিন্তু, প্রশ্ন একটা রয়েই যায়। এই ম্যাচে কি কোনো অসামঞ্জস্য কিছু লক্ষ্য করা গেছে? আর সেই প্রশ্নেই কিক্রেটপ্রেমীরা অভিযোগ তুলেছেন। গুরুতর অভিযোগ। সেটা ম্যাচ ফিক্সিং বা পাতানো ম্যাচ।

সেই অভিযোগের তীর এখন আফগান অধিনায়ক গুলবাদিন নাইবের দিকে। আর এ নিয়েও খবর প্রকাশ করেছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম ও খেলা বিষয়ক ওয়েবসাইট। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এ নিয়ে বেশ প্রতিক্রিয়াও দেখা গেছে।গুলবাদিন নাইবো কঠোর সমালোচনা করে তার বিরুদ্ধে তদন্ত করে আইসিসিকে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানানো হচ্ছে। সেইসঙ্গে তাকে দল থেকে বহিষ্কারেরও দাবি উঠেছে।

ফক্স স্পোর্টসের প্রতিবেদনে বলা হয়, আফগান অধিনায়ক গুলবাদিন নাইব পাকিস্তানকে ম্যাচটি উপহার দিয়ে এসেছে। তারা ফিক্সিং এর অভিযোগ নিয়ে কিক্রেটপ্রেমীদের পোস্টগুলোও তুলে ধরেন। দ্যা টেলিগ্রাফও একই ধরনের প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

প্রতিবেদন গুলোতে বলা হয়, আফগান স্পিনাররা যখন ম্যাচের লাগাম আফগানদের অনুকূলে নিয়ে আসেন ঠিক তখন গুলবাদিন পাকিস্তানের ৪৬তম ওভারে বল করতে এসে ৬ বলে ১৮ রান দিয়ে মূলত পুরো ম্যাচটি জিততে পাকিস্তানকে প্রত্যক্ষভাবে সহায়তা করেন!

গুলবদিন বোঝাতে চেয়েছেন, দলের সেরা পেসার হামিদ হাসান না থাকায় তাঁকে ম্যাচের ওই মুহুর্তে বল করতে হয়েছে। পাকিস্তানের ইনিংসে ২ ওভার বল করেই হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন হামিদ। কিন্তু ম্যাচের ওই মুহুর্তে ক্লাব পর্যায়ের কোনো অধিনায়কও সম্ভবত পেসারদের হাতে বল তুলে দেবেন না। কারণ তার আগে আফগান স্পিনারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়েছিল পাকিস্তান। উইকেটও স্পিনারদের সাহায্য করছিল দারুণভাবে। বল থেমে থেমে আসার সঙ্গে ভালোই বাঁক নিচ্ছিল। আর তখন শিনোয়ারির হাতেও দুটি ওভার ছিল।

আফগান অধিনায়কের ব্যাখ্যা ক্রিকেটপ্রেমীদের যে সন্তুষ্ট করতে পারছে না সে কথা বলাই বাহুল্য। বিশ্বকাপ শুরুর আগে বিতর্কিতভাবে গুলবদিনের কাঁধে নেতৃত্বভার তুলে দিয়েছিল আফগান টিম ম্যানেজমেন্ট। এ নিয়ে তখন সরাসরি অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন রশিদ খান-মোহাম্মদ নবীর মতো ক্রিকেটাররা। কাল অবিশ্বাস্য ওই সিদ্ধান্তের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সাধারণ ক্রিকেটপ্রেমীরা গুলবদিনের বিপক্ষে ম্যাচ পাতানোর দাবি তুললেও বর্তমান ও সাবেকদের মুখ থেকে সরাসরি কিছু শোনা যায়নি। তবে প্রায় সবাই একটি বিষয়ে একমত, অধিনায়ক হিসেবে চরম স্বার্থপরতা, বাজে এবং মূর্খতার এটাই সম্ভবত সবচেয়ে জঘন্য নজির।

জিএসনিউজ/এমএইচএম/এএওয়াই

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও- gsnewsfeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :