পাসপোর্টে ভুল থাকলে,হারালে, অথবা নতুন করতে গেলে করণীয়।

জিএস নিউজ ডেস্কজিএস নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:২২ পিএম, ২৫ অক্টোবর ২০১৮

স্টাফ রির্পোটারঃ>>>>>>

আজকাল জরুরি কোনো কাজে কিংবা বেড়াতে দেশের বাইরে যাচ্ছে অনেকে। কিন্তু দেশের বাইরে যাওয়ার সময় পাসপোর্ট কিংবা ভিসা নিয়ে সমস্যায় পড়তে হয় অনেককেই। তাই বেড়াতে যাওয়ার আগে পাসপোর্টের বিষয়ে খুঁটিনাটি সব জেনে নেওয়া ভালো।

এখন জেনে নিন কিভাবে পাসপোর্ট করা যায়…

পাসপোর্ট পেতে হলে প্রথমেই ইন্টারনেট থেকে বিনামূল্যে ফরম সংগ্রহ করতে হবে। ফরম ডাউনলোড করতে ক্লিক করুনঃ পাসপোর্ট ফর্ম ( অথবা পাসপোর্ট অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটেই (http://www.dip.gov.bd) এই ফরম পাওয়া যাবে।) এ ছাড়া ঢাকাসহ সারা দেশে ১০টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকেও সংগ্রহ করা যাবে এ ফরম। নির্ধারিত ফরম নিজ হাতে পূরণ করতে হবে।

আবেদনপত্র পূরণ করার নিয়মঃ

চার পৃষ্ঠার এ আবেদনপত্রে আবেদনকারীকে নাম, বাবার নাম,মায়ের নাম, তাদের পেশা, জাতীয়তা, জন্মস্থান, জন্ম তারিখ, জন্ম সনদপত্র নম্বর, জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর, বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা, যোগাযোগের তথ্য সরবরাহ করতে হবে। এসব তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করে আবেদনকারীকে নির্দিষ্ট জায়গায় স্বাক্ষর ও তারিখ লিখতে হবে। এ ছাড়া আবেদনকারীকে একটি ৫৫ বাই ৪৫ মিলিমিটার আকারের রঙিন ছবি (পাসপোর্ট সাইজ ছবি) ফরমে আঠা দিয়ে লাগানোর পর সত্যায়ন করতে হবে। এক্ষেত্রে, দুটি আবেদন ফরম পূরণ করে জমা দিতে হবে।

যারা সত্যায়িত করতে পারবেনঃ

আবেদনপত্রের ফরমে সত্যায়ন করতে পারবেন- ১. সাংসদ ২. সিটি করপোরেশনের মেয়র, ডেপুটি মেয়র ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর ৩. গেজেটেড কর্মকর্তা ৪. বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ৫. উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ৬. পৌরসভার মেয়র ৭. বেসরকারি কলেজের শিক্ষক ৮. বেসরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ৯. দৈনিক পত্রিকার সম্পাদক ১০. পৌর কাউন্সিলর ১১. রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক ও স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা বা করপোরেশনের নতুন জাতীয় বেতন স্কেলের সপ্তম বা তদূর্ধ্ব গ্রেডের কর্মকর্তারা।

নতুন পাসপোর্ট আবেদনের নির্ধারিত ফিঃ

জরুরী পাসপোর্টের ক্ষেত্রে ৬ হাজার টাকা ও সাধারণের ক্ষেত্রে প্রয়োজন ৩ হাজার টাকা। ইতিবাচক পুলিশ প্রতিবেদন পাওয়া গেলে জরুরী পাসপোর্ট সাত দিন ও সাধারণ পাসপোর্টের ক্ষেত্রে ১৫ দিন পর ইস্যু করা হবে। তবে সরকারী কর্মকর্তা,কর্মচারী ও তাদের নির্ভরশীলদের জন্য পাসপোর্ট ফি ৩ হাজার টাকা। তবে তাদের ক্ষেত্রে পুলিশ প্রতিবেদনের প্রয়োজন নেই। এসব ফি সোনালি ব্যাংকের নির্ধারিত শাখায় জমা দিতে হবে।

আবেদনপত্র জমা দেওয়ার আগে করণীয়ঃ

আবেদনপত্র জমা দেওয়ার আগেই তা নির্দিষ্ট আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের কর্মকর্তা এটি ভেরিফিকেশন বা যাচাই করবেন। আবেদনপত্রটি ভেরিফিকেশন করানোর আগে এর সঙ্গে ব্যাংককে টাকা জমা দেওয়ার রশিদ আঠা দিয়ে আবেদনপত্রের সঙ্গে যোগ করে দিতে হবে। এ ছাড়া আবেদনপত্রের সঙ্গে সংযুক্ত ছবিটিও যথাযথ কর্মকর্তাকে দিয়ে সত্যায়িত করে নিতে হবে। পাশাপাশি জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্ম নিবন্ধন সনদের ফটোকপিও সত্যায়িত হতে হবে। যদি কারও জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকে, তাহলে পাসপোর্ট ফরমের তৃতীয় পৃষ্ঠার নির্দিষ্ট স্থানে বসবাসরত এলাকার জনপ্রতিনিধি দ্বারা প্রত্যয়ন করে নিতে হবে। এমআরপির আবেদন ফরম সংগ্রহ ও জমা দেওয়া যাবে দেশের ১০টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে। প্রতিটি আঞ্চলিক অফিসের অধীনে রয়েছে কয়েকটি জেলা। আঞ্চলিক অফিসগুলো হলো- ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, সিলেট, রাজশাহী, বরিশাল, রংপুর, যশোর ও গোপালগঞ্জ।

আবেদনপত্র জমা দেওয়ার নিয়মঃ

আবেদনপত্রটির ভেরিফিকেশনের পর দায়িত্বরত কর্মকর্তা সেটি যাচাই করে সিলসহ স্বাক্ষর করবেন। এরপর আবেদনপত্রটি নির্দিষ্ট স্থানে জমা দিতে হবে। পাসপোর্ট অফিসেই খোলা আছে বেশ কয়েকটি বুথ। এসব বুথেই জমা দিতে হবে।

আবেদনপত্রটি জমা দেবার সময় পাসপোর্ট অফিসের দায়িত্বরত ব্যাক্তি আপনার তথ্যগুলো কম্পিউটারে এন্ট্রি করে রাখবেন। এরপর তিনি আপনাকে একটি টোকেন দেবেন। এরপর সে টোকেনসহ আবেদনপত্রটি নিয়ে ছবি তোলার জন্য আরেকজন কর্মকর্তার কাছে যেতে হবে। জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্য যেভাবে ছবি তোলা হয়েছিলো,এখানেও একইভাবে নির্দিষ্ট মাপের ছবি তোলা হবে। এছাড়াও দুই হাতের আঙ্গুলের ছাপও দিতে হবে ইলেকট্রনিক মেশিনে । তারপর নেয়া হবে ইলেকট্রনিক স্বাক্ষর। তবে, ইলেকট্রনিক স্বাক্ষর আবেদন পত্রের স্বাক্ষরের সঙ্গে যেনো মিল থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এই প্রক্রিয়া শেষে কর্তৃপক্ষ পাসপোর্ট সংগ্রহের জন্য একটি আলাদা ডকুমেন্ট দেবে এবং আবেদনপত্রটি রেখে দিয়ে আপনাকে পাসপোর্ট সংগ্রহ করার তারিখও জানিয়ে দেবেন।

পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে করণীয়ঃ

পাসেপোর্ট হারিয়ে গেলে নিকটস্থ থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি)মূলকপি সহ আবেদনপত্র জমা দিতে হবে। সম্ভব হলে  হারিয়ে যাওয়া পাসপের্টের ফটোকপি আবেদনপত্রের সাথে সংযুক্ত করতে হবে। এক্ষেত্রে জরুরি পাসপোর্টের ক্ষেত্রে ৬  হাজার টাকা ও সাধারণের ক্ষেত্রে ৩ হাজার টাকা ফি প্রয়োজন। এ ধরনের পাসপোর্ট অনুকূল পুলিশি প্রতিবেদন পাওয়া সাপেক্ষে জরুরি পাসপোর্টের ক্ষেত্রে ১৫ দিন ও সাধারণের ক্ষেত্রে ৩০ দিনের মধ্যে পাসপোর্ট ইস্যু করা হয়।

পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ, পাতা শেষ বা নষ্ট, ছবির মিল নেই-এসব ক্ষেত্রে করণীয়ঃ

আবেদনপত্রের সাথে পুরাতন পাসপোর্টের ৯ পাতা পর্যন্ত ফটোকপি জমা দিতে হবে। এক্ষেত্রে জরুরি পাসপোর্টের ক্ষেত্রে ৬ হাজার টাকা ও সাধারণের ক্ষেত্রে ৩ হাজার টাকা ফি দিতে হবে। এ ধরনের পাসপোর্ট অনুকূল পুলিশি প্রতিবেদন পাওয়া সাপেক্ষে জরুরি পাসপোর্টের ক্ষেত্রে ১৫ দিন ও সাধারণের ক্ষেত্রে ৩০ দিনের মধ্যে পাসপোর্ট ইস্যু করা হয়।

 

ক্রমিক নম্বর পাসপোর্ট কর্তৃপক্ষ যেসব জেলার জন্য প্রযোজ্য ঠিকানা ফোন নম্বর
ঢাকা বিভাগের পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস মতিঝিল, পল্টন, খিলগাঁও, সবুজবাগ, ‍মিরপুর, শাহআলী, পল্লবী, কাফরুল, তেজগাঁও, মোহাম্মদপুর, আদাবর, গুলশান, ক্যান্টনম্যান্ট, খিলক্ষেত, রমনা, শাহবাগ, নিউমার্কেট, ধানমন্ডি, হাজারীবাগ, ধামরাই ও সাভার। পাসপোর্ট ভবন, ই-৭, আগারগাঁও, শের-ই- বাংলা নগর, ঢাকা-১২০৭। ০২-৮১৫৯৫২৫
চট্টগ্রাম বিভাগের পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস কোতয়ালী, পাহাড়তলী, চাঁদগাঁও, পাঁচলাইশ, বন্দর, ডবল মুরিং, কর্ণফুলী, খুলশী, হালীশহর, বায়েজিদ বোস্তামী, বাকলিয়া, পতেঙ্গা, মিরসরাই, সীতাকুণ্ড ও রাউজান থানা। মানসুরাবাদ, চট্টগ্রাম। ০৩১-২৫৫০০১০
আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, কুমিল্লা। কুমিল্লা সদর (কোতয়ালী), চান্দিনা, বুরিচং, দেবিদ্বার, দাউদকান্দি, হোমনা, ব্রাহ্মণপাড়া, মুরাদনগর, মেঘনা, মনোহরগঞ্জ ও তিতাস থানা নোয়াপাড়া, কুমিল্লা। ০৮১-৬৫৭৮৬
আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, ময়মনসিংহ। ময়মনসিংহ জেলা জিলা স্কুল রোড, ময়মনসিংহ। ০৯১-৬৬৩৫৭
আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, গোপালগঞ্জ। গোপালগঞ্জ জেলা চাঁদমারী রোড, গোপালগঞ্জ ০৬৬৮-৫৭০৮৯
আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, নোয়াখালী। নোয়াখালী জেলা হাসপাতাল রোড, নোয়াখালী ০৩২১-৬১৭০৪
বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, রাজশাহী। রাজশাহী জেলা হাতেম খাঁন, রাজশাহী ০৭২১-৭৭২২৪৮
বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, রংপুর। রংপুর জেলা সড়ক নং-৫, মুলাতলী, রংপুর ০৫২১-৬৩২৫০
আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, সিরাজগঞ্জ। সিরাজগঞ্জ জেলা ০৭৫১-৬২৯০৩
১০ বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, খুলনা। খুলনা জেলা বাড়ী নং – ৩৮, সড়ক নং- ৫, সোনাডাঙ্গা আবাসিক এলাকা, খুলনা ০৪১-৭৩২১৪৬
১১ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, যশোর। যশোর জেলা নাজিরশংকরপুর, যশোর ০৪২১-৭৩৫০৭
১২ বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, বরিশাল। বরিশাল জেলা বন্ধ রোড, বরিশাল ০৪৩১-৬৪৫৪৯
১৩ বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, সিলেট। সিলেট জেলা বাড়ী নং- ৫৭, সড়ক নং-২, ব্লক-ই, শাহজালাল উপশহর, সিলেট ০৮২১-৭১৪০২২
১৪ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, হবিগঞ্জ। হবিগঞ্জ জেলা কোরেশ নগর এলাকা ০৮৩১-৫২৮৯৪
১৫ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, ফরিদপুর। ফরিদপুর জেলা ঝিলতলী, ফরিদপুর ০৬৩১-৬২৭৮৭
১৬ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, চাঁদপুর। চাঁদপুর জেলা ০৮৪১-৬৬৪৪৭
১৭ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, মানিকগঞ্জ। মানিকগঞ্জ জেলা ০৬৫১-৫১০১০
১৮ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, মুন্সিগঞ্জ। মুন্সিগঞ্জ জেলা
১৯ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, বগুড়া। বগুড়া জেলা
২০ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, দিনাজপুর। দিনাজপুর জেলা
২১ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, পাবনা। পাবনা জেলা
২২ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, পটুয়াখালী। পটুয়াখালী জেলা
২৩ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, মৌলভীবাজার। মৌলভীবাজার জেলা
২৪ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, টাঙ্গাইল। টাঙ্গাইল জেলা
২৫ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, চাঁদগাঁও, চট্টগ্রাম। চাঁদগাঁও পাঁচলিশ, চট্টগ্রাম
২৬ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, উত্তরা,  ঢাকা। উত্তরা, দক্ষিণখাঁন, উত্তরখাঁন, তুরাগ, বিমানবন্দর, বাড্ডা, আশুলিয়া ও গাজীপুর বাড়ী নং-২৯, সড়ক নং-৭, সেক্টর-১২, উত্তরা, ঢাকা ০২-৮৯৬২০৩৯
২৭ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, যাত্রাবাড়ী, ঢাকা। যাত্রাবাড়ী, নারায়নগঞ্জ, ডেমরা, দোহার বাড়ী নং-৩৬০৫, মুজাহিদনগর, রায়েরবাগ, কদমতলি, ঢাকা ০২-৭৫৪২০৩৩
২৮ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, কিশোরগঞ্জ। কিশোরগঞ্জ জেলা
২৯ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, নরসিংদী। নরসিংদী জেলা
৩০ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, ফেনী। ফেনী জেলা
৩১ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা
৩২ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, কক্সবাজার। কক্সবাজার জেলা
৩৩ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, রাঙ্গামাটি। রাঙ্গামাটি জেলা
৩৪ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, কুষ্টিয়া। কুষ্টিয়া জেলা

আপনার মতামত লিখুন :