পরীক্ষা কেন্দ্রে পিইসি পরীক্ষার্থীর সন্তান প্রসব!

জিএস নিউজ ডেস্কজিএস নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:৪২ পিএম, ২৫ নভেম্বর ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক:>>>
চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার ৬ নম্বর ওয়ার্ড আদর্শ গ্রামের দিঘীর পাড়া এলাকায় পিইসি পরীক্ষা কেন্দ্রে সন্তান প্রসব করেছেন এক পরীক্ষার্থী। রবিবার (২৫ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় বাঁশখালী সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। ঐ শিক্ষার্থীর নাম ফাতেমা। সে স্থানীয় চা দোকানদারের মেয়ে।

 

 

পরীক্ষা কেন্দ্র এবং এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, পরীক্ষা চালাকালীন হঠাৎ ফাতেমা অসুস্থ বোধ করলে ডিউটিরত এক শিক্ষিকা তাকে আলাদা কক্ষে পরীক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। কিন্তু অবস্থা খারাপ দেখে তাৎক্ষণিক মেয়ের মা ও বাবাকে তারা খবর দেওয়া হয়। ওখানেই ফাতেমা কন্যা সন্তান প্রসব করে। পরে কেন্দ্রের শিক্ষকদের সহায়তায় তাকে বাঁশখালী উপজেলা হাসপাতালে আনা হয়।

 

 

ঐ শিক্ষার্থীর পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রতিবেশী মফজল আহমদের পুত্র নেজাম উদ্দীন, উলা মিয়ার পুত্র মন্নান ও আজিজ আহমদের পুত্র মিনার বিভিন্ন সময়ে মেয়েটিকে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করলে সে গর্ভবতী হয়ে পড়ে।

 

 

মেয়ের মা বলেন, ভয়ের কারণে এ বিষয়ে মেয়ে আমাদেরকে কোনো কিছু আগে থেকে জানায়নি। এ ঘটনায় ধর্ষক প্রতিবেশী ওই তিনজনকে অভিযুক্ত করেন ধর্ষিতার মা ও বাবা।

 

 

উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সের গাইনি কনসালটেন্ট রোজিনা আক্তার বলেন, বাঁশখালী মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পিইসি পরীক্ষা কেন্দ্রে ১৩ বছর বয়সী মেয়েটির বাচ্চা প্রসব হলে ওই কেন্দ্রে ডিউটিরত শিক্ষিকার সহায়তায় নবজাতক এবং ছাত্রীকে হাসপাতালে নিয়ে এলে তাদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়। মেয়েটির বয়স কম হওয়ায় শারীরিকভাবে সে সন্তান প্রসবের উপযুক্ত ছিল না। পরবর্তী সময়ে আমরা তাদের ট্রিটমেন্ট দেই। বর্তমানে মা মেয়ে দুইজনই সুস্থ আছে।

 

 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাঁশখালী থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. কামাল হোসেন বলেন, এ ধরনের একটি খবর শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে নেজাম উদ্দিন নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। এ দিকে, ধর্ষিতা শিশুর সহপাঠীরা ও এলাকাবাসী ঘটনার সাথে জড়িত হওয়ায় দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবি জানান।

আপনার মতামত লিখুন :